imageportofolio
ঐতিহাসিক বিগ ভলিউম বাঁশখালী

শুভেচ্ছা বাণী

#

পাহাড়-নদী-সমুদ্র-সমতল সবুজ বণায়ন বেষ্টিত বিভিন্ন প্রাকৃতিক সম্পদে ভরপুর জনপদ বাঁশখালী। এ জনপদের ইতিহাস ও ঐতিহ্য একটি ভিন্ন মানচিত্রে তুলে ধরার প্রয়াসে সমৃদ্ধ এর প্রতিটি স্তরের বিভিন্ন ব্যক্তি, পরিবার ও শিল্পের তথ্যসমৃদ্ধ একটি গ্রন্থ প্রকাশের লক্ষ্যে আমার অনুজপ্রতিম প্রকৌশলী গোলাম ছরওয়ার চৌধুরী নিত্যনতুন কৌশল অবলম্বনে দীর্ঘদিন ধরে কাজ করে যাচ্ছে।

আমি ছরওয়ারের এই মহতি কাজের প্রশংসা করি। বিশ্বের বিভিন্ন স্থানে বাঁশখালীর ছড়িয়ে-ছিঠিয়ে থাকা গুণীজনদের একটি গ্রন্থে' আবদ্ধ করে পরস্পরকে জানার সমূহ সুযোগ সৃষ্টি করবে "ঐতিহাসিক বিগ ভলিউম বাঁশখালী "। উক্ত গ্রন্থ দ্রুত সম্পাদনা ও প্রকাশের উদ্যোগ নেওয়ার জন্য ছরওয়ারকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি এবং সফলতা কামনা করছি।

জাফরুল ইসলাম চৌধুরী
সাবেক সংসদ সদস্য চট্টগ্রাম ১৬
সাবেক বন ও পরিবেশ প্রতিমন্ত্রী
গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার

#

পশ্চ্যাদপদ বাঁশখালীর উন্নয়নে আমার দীর্ঘ রাজনৈতিক জীবনে অনেক স্বপ্ন ছিল। যার অনেক কিছু যেমন চানপুর থেকে টইটং মাটির রাস্তাকে সড়ক ও মহাসড়কের আওতায় আনয়ন, কর্ণফুলী শাহ আমানত সেতু বাস্তবায়ন (যা পূর্বে লোহার সেতু ছিল), শঙ্খ নদীর উপর তৈলারদ্বীপ সেতু নির্মাণে ফেরী সার্ভিস স্থাপনসহ পশ্চিম বাঁশখালীর উন্নয়ন ইত্যাদি আল্লাহর রহমতে অনেক কিছু করতে পেরেছি। আরো অনেক স্বপ্ন বাস্তবায়নের পথে।

পূর্ণাঙ্গ বাঁশখালীর একটি স্থিরচিত্র আমাকে সবসময় আন্দোলিত করত। সেরূপ একটি চিত্র আমার ইউনিয়নের সম্ভ্রান্ত ব্যক্তি মরহুম সিরাজুল মোস্তফা চৌধুরী (সার্কেল অফিসার রেভিনিউ- ইপিসিএস) এর পুত্র ইঞ্জিনিয়ার গোলাম সরওয়ার চৌধুরী “ঐতিহাসিক বিগ ভলিউম বাঁশখালী” গ্রন্থের মাধ্যমে উপস্থাপন করতে যাচ্ছে।

এটি অত্যন্ত আনন্দের বিষয় যে, উক্ত গ্রন্থটি প্রকাশিত হলে অবশ্যই বাঁশখালী উপজেলা তার নিজস্ব স্বকীয়তার প্রমাণ করতে যথেষ্ট ভূমিকা রাখবে। যদিও এ কাজের পরিশ্রম অনেক তবুও আমার দৃঢ় বিশ্বাস সরওয়ার তার গন্তব্যে অতি দ্রুত পৌঁছে যাবে ইনশআল্লাহ। তার জন্য দোয়া ও সহযোগিতা সবসময় রইল।

মাহমুদুল ইসলাম চৌধুরী
সাবেক মেয়র, চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন
সাবেক সংসদ সদস্য, চট্টগ্রাম-১৬, বাঁশখালী, চট্টগ্রাম

#

একজন রাজনীতিবিদ হিসেবে অনেক কিছু দেখার এবং জনগণের কল্যাণে কাজ করার সৌভাগ্য আমাদের হয়। আমরা যখন ক্রিয়েটিভ কোন কিছু কাউকে করতে দেখি তখন আমরা চেষ্টা করি যাতে তা থেকে জনগণ উপকৃত হয়। সমাজে কিছু পরিবর্তন আসুক, নতুনত্ব আসুক, দেশ এগিয়ে যাক। জনগণ আনন্দিত হলে বা উপকৃত হলে আমরাও আনন্দিত হই। আমাদের প্রাপ্তি এখানে।

প্রকৌশলী গোলাম ছরওয়ার চৌধুরী আমার শ্বশুর দেশের গর্বিত সন্তান । তার এ সৃজনশীল কার্যক্রম দেখে আমি মুগ্ধ। কারণ পুরো বাঁশখালী একটি বৃত্তে আবর্তিত হলে সেখানে জামাই হিসাবে আমারও নাম স্থান পাবে। এটি একটি চমৎকার ও বাস্তব চিন্তাধারা। এখানে নতুনত্ব বিদ্যমান। আমি “ঐতিহাসিক বিগ ভলিয়ম বাঁশখালী”র সর্বাঙ্গিণ সফলতা কামনা করছি।

মোঃ সোলাইমান আলম শেঠ
অনারারী কনসুলেট, দক্ষিণ আফ্রিকা
সভাপতি, চট্টগ্রাম মহানগর জাতীয় পার্টি